রূপচর্চা: ত্বকের যত্নে ঘরোয়া টিপস

রূপচর্চায় ঘরোয়া টিপস
রূপচর্চায় ঘরোয়া টিপস

রূপচর্চায় ঘরোয়া টিপসপ্রতিদিন ত্বকের যত্ন

দেহের অতি সংবেদনশীল স্থান গুলোর মধ্যে একটি হচ্ছে ত্বক। একটু বেশি গরম কিংবা বেশি শীতে ত্বক এর উপর নানা ধরনের প্রভাব ফেলে। আর এতে করেই বাহ্যিক সৌন্দর্য নষ্ট হয়। তেমনি অভ্যন্তরীণ ক্ষতিকর প্রভাব ও ফেলতে পারে। ত্বক এর ব্যাপারে ছেলেদের তুলনায় মেয়েরা একটু বেশি সচেতন। বেশ কিছু নিয়ম মেনে চললেই ত্বকের সতেজতা রক্ষা করা সম্ভব।

ত্বকের যত্নে ঘরোয়া টিপসএই গরমে ত্বকের যত্ন::
গরমকালে রোদের মধ্যে বেশিক্ষন থাকলে সানবার্ন হয়। ঘামের জন্য মুখে ব্রন উঠে। ত্বক কালচে হয়ে যায়। আবার তৈলাক্ত ত্বকের মানুষদের নানা সমস্যা দেখা দেয়। এসময় যা করতে হবে :
⭕ফেইস ওয়াশ দিয়ে মুখ ধুয়ে নিতে হবে। হাতের কাছে ফেইস ওয়াশ না থাকলে ঠান্ডা পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে নিলেও উপকার পাওয়া যায়। এতে করে ময়লা দূর হয়ে যায়, ত্বকের কোষগুলো পানি পেয়ে সতেজ থাকে।
⭕রোদের অতিবেগুনী রশ্মি থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য সানস্ক্রিন ব্যবহার করা যেতে পারে। এটা তেলতেলে ভাব দূর করতেও সাহায্য করে।
⭕শুষ্ক ভাব দূর করার জন্য লোশন ব্যবহার করতে পারেন।
⭕তৈলাক্ত খাবার যতটা সম্ভব না খাওয়াই ভালো।
⭕প্রচুর পানি পান করতে হবে। শাক, ফলমূল বেশি বেশি খেতে হবে।
⭕ঠোটের কালচে ভাব দূরীকরণ : ঠোঁট নানা কারনে কালো হয়ে যেতে দেখা যায়। আবহাওয়া, জেনেটিক্স, রুটিনের অনিয়ম ইত্যাদি। লেবু চাকতি আকারে কেটে হাল্কা চিনি লাগিয়ে ঠোঁটের চারদিকে ঘুরান। এতে করে মৃত কোষ গুলো মরে গিয়ে গোলাপি স্কিন বের হয়ে আসবে। কালচে ভাব দূর হবে। নারিকেল তেল দিনে দুবার দিলেও ঠোঁটের কালচে ভাব চলে যাবে। বেদানার রং পেতে হলে বেদানা বেটে রস বের করে লাগিয়ে রাখুন। এতে করে মেলানিন কমে যাবে। স্নিগ্ধতা রক্ষা হবে।

ত্বকের যত্নে ঘরোয়া টিপসশীতকালীন ত্বকের যত্ন::
বাতাসে আর্দ্রতা কমে যাওয়ায় শীতকাল এ ত্বক এমনিতেই শুষ্ক হয়ে যায়। রুক্ষতা দেখা দেয়। তাই এসময় ত্বকের প্রতি সচেতন হতে হবে। ত্বকের কোমলতা রক্ষার দিকে বিশেষ নজর দিতে হবে।
⭕হাল্কা সাবান ব্যবহার করতে হবে। মধু আর লেবুর রসের স্ক্র‍্যাবার ব্যবহার করতে পারেন।চালের গুড়া, বেসন এসব দিয়ে ত্বক পরিষ্কার করবেন।
⭕লোশন, কোল্ড ক্রীম, ভেসলিন ব্যবহার করবেন।
⭕মাছ, ভিটামিন সি যুক্ত ফল আর অন্যান্য শাক সব্জি বেশি করে খেতে হবে।


বয়সভেদে ত্বকের যত্ন::
বিভিন্ন বয়সের মানুষের ত্বক বিভিন্ন রকম হয়ে থাকে। যেমন, তারুন্যে ত্বকে এক ধরনের লাবন্যতা দেখা দেয়। বার্ধক্য এ নানা দাগ, রেখা দেখা যায়। তাই বয়স ভেদে ত্বকের যত্ন ভিন্ন হয়ে থাকে।
⭕কৈশোরে দৈহিক পরিবর্তনের সাথে সাথে ত্বকেও নানা সমস্যা দেখা দেয়। ব্রনের সমস্যা, ডাবল চিন, চোখের নিচে কালি, মেদ জমে। তাই এব্যাপারে  রূপ বিশেষজ্ঞ শারমিন জানান, এসময় ভাল করে বার বার পানি দিয়ে মুখ ধুতে হবে। এতে করে তেল ভাব দূর হবে। মূলতানি মাটি,  বেসন, মসুর ডাল দিয়ে পেস্ট রেডি করে দিতে হবে। সাথে কমলার ছোলা গুড়া করে দিতে হবে। তাহলে ব্রন সহজেই দূর হবে। সান্সক্রিন, লোশন এসব দিতে হবে। এতে করে মসৃণতা রক্ষা হবে।

রূপচর্চায় ঘরোয়া টিপস


টক দই নিয়ে তুলায় ভিজিয়ে ব্রনের জায়গায় লাগিয়ে রাখুন সারারাত। সকাল বেলা ঠান্ডা পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। ল্যাক্টিক এসিড ব্রন উপশমে সাহায্য করে।
⭕মাঝ বয়সীদের ত্বক একটু তেলতেলে হ্য়। এজন্য বার বার পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলতে হবে।স্ক্র‍্যাবার হিসেবে মধু, ডিমের সাদা অংশ, ভিনেগার মিশিয়ে ব্যবহার করতে পারেন। আর সেই সাথে মুখের কিছু ব্যায়াম আছে যা করলে ত্বক এর লাবণ্যময়ী ভাব বজায় থাকে। ব্লেন্ড করা আলু ত্বকের কালচে ভাব দূর করে। তাই এটি ব্যবহার করতে পারেন।
⭕ বয়স বাড়ার সাথে সাথে রিংকেল, ডার্ক সার্কেল বাড়তে থাকে। তাই এসময় এন্টি এজিং ক্রীম ব্যবহার করে দেখতে পারেন। এছাড়া ও বিভিন্ন ফলের নির্যাস ও ট্রাই করে দেখতে পারেন। এতে ত্বকের উজ্জ্বলতা ফিরে আসবে।
⭕মেনোপজ শুরু হলে হরমোনের চেঞ্জ আসে।
মেটাবলিজম সিস্টেম দুর্বল হয়ে যায়। আর সেই সাথে বয়সের ভাজ পড়ে ত্বকে। এসময় খাদ্যাভাসের দিকে নজর দিতে হবে। এ্যান্টি অক্সিডেন্ট ক্রীম ব্যব হার করতে হবে। রুটিন মেনে ব্যায়াম করতে হবে নিয়মিত। আর্দ্রতা ঠিক রাখতে ময়েশ্চারাইজার ব্যব হার করতে হবে। ভালো মানেরটা কিনতে হবে। হাল্কা ময়েশ্চারাইজার ত্বকের জন্য ভালো।
ব্য়স বাড়ার সাথে সাথে কোলাজেন কমে যায়, ত্বক আলগা হয়ে যায়। নিয়মিত ব্যায়াম করলে পেশিগুলোর ইলাস্টিসিটি বজায় থাকবে। নিয়মিত ত্বক এক্সফ্লোয়েট করতে হবে। এতে করে মৃত কোষ গুলো উঠে যাবে। ডেইলি অন্তত ৬ থেকে ৮ গ্লাস জল খেতে হবে। এতে করে টোনেসিটি রক্ষা পাবে।
ত্বকের যত্নে ঘরোয়া টিপসঘুমের আগে ত্বকের যত্ন:


দিনের বেশিরভাগ সময় কাটে কর্ম ব্যস্ততায়। সারাদিনের রোদ, গরম, ক্লান্তিতে ত্বকের নির্যাস কমে যায়।  ত্বক নিস্তেজ হয়ে পড়ে।  লোমকূপ গুলোতে ময়লা আটকে থাকে।  ঠিক ভাবে পরিষ্কার করা না হলে ত্বক কালচে হয়ে পড়ে, ব্রন, ফুসকুড়ির উদয় হয়। এজন্য রাতে ঘুমানোর আগে ত্বকের বিশেষ যত্ন নিতে হবে।
রূপ বিশেষজ্ঞ আফরোজা বলেছেন,  ” ঘুমানোর আগে অবশ্যি খুব ভালো করে মুখ ধুয়ে নিতে হবে। মেকাপ, কাজল এগুলা মুখে লেগে থাকলে ব্রন উঠতে দেখা যায়। তাই এগুলা ভালো করে উঠাতে হবে। কাজল উঠানোর জন্য তুলার সাথে জেলি বা ভ্যাসলিন  লাগিয়ে নিতে হবে। ক্রীম, লোশন লাগাতে হবে মুখে। হাত পায়ে ও ময়েশ্চারাইজার দিতে হবে, এতে ত্বক ভালো থাকবে।
⭕শুষ্ক ত্বক: ডিমের কুসুম ভালো ভাবে ফেটিয়ে তার সাথে বেসন মিক্স করে মুখে লাগিয়ে নিতে হবে।
⭕তৈলাক্ত ত্বক: গ্রিন টি গুড়ার সাথে গোলাপ জল মিশিয়ে স্ক্র‍্যাবার বানিয়ে মুখে লাগালে বেশ উপকার পাওয়া যায়।
⭕সাধারণ ত্বক: পাকা কলার সাথে চালের গুড়া মিশিয়ে লাগালে বেশ উপকার পাওয়া যায়। এটা ভালো ময়েশ্চারাইজার হিসেবে কাজে দেয়।
⭕চুল আচড়িয়ে ঘুমাতে হবে। এতে করে রক্ত সঞ্চালন ভালো হয়।
⭕চুল বেধে ঘুমানো উচিত। এতে করে আগা ফাটবে না। চুলে জট পাকবে না।
⭕খাদ্যাভাসে ফলমূল এসব বেশি রাখলে তা  ত্বক এর আর্দ্রতা বজায় রাখতে সাহায্য  করে।
⭕মুলতানি মাটি ,  চন্দন এসব স্ক্র‍্যাবার বেশ উপকার দেয়। ত্বককে উজ্জল করে। লাবন্যতা বজায় রাখে।
⭕ত্বক এর সংক্রমন দেখা দিলে টক দইয়ের প্রলেপ দিয়ে ব্যান্ডেজ করে রাখলে উপকার পাওয়া যায়। এতে থাকা প্রোবায়োটিক সংক্রমন এড়াতে সাহায্য  করে।
পোরসের সমস্যা দূরীকরণ :


বয়স বাড়লে পোরসের সমস্যা বেড়ে যায়। অয়েলি স্কিন, জেনেটিক্স, এজিং প্রসেস এসব কারনে পোরস বড় হয়ে যায়। এজন্য জেল বেজড ক্লিনজার ব্যব হার করুন। টি ট্রী স্ক্র‍্যাবার ইউজ করতে পারেন। সপ্তাহে এক দিন ক্লে মাস্ক দিতে হবে। এতে করে এজিং প্রসেস স্লো হয়ে যাবে। ভালো মানের ময়েশ্চারাইজার ইউজ করলে ত্বক ভালো থাকবে, উজ্জলতা ঠিক থাকবে।
পোর কমাতে টক দই স্ক্রাবারের মত দিয়ে ১৫ মিনিট রেখে দিতে হবে। এভাবে দিতে থাকলে পোর কমে যেতে হেল্প হবে।
চোখের কালচে ভাব দূরীকরণ :



বেশি রাত জাগা হলে, ঘুম কম হলে চোখের চার পাশ ফুলে ওঠে। কালচে হয়। ডার্ক সাকেল দেখা যায়। এজন্য কফি মিক্সকে তুলা দিয়ে ভিজিয়ে চোখের চারপাশে ম্যাসাজ করতে হবে। এতে করে কালচে ভাব দূর হবে। কাজল লেগে থাকলে চোখ এর চার পাশ কালো হতে পারে। তাই ভালো করে কাজল উঠাতে হবে। বার বার মুখ দিতে হবে। ফোলা কমাতে টক দই তুলায় ভিজিয়ে চোখের চারপাশে দিলে ফোলা ভাব দূর হবে।
কিছু নিয়ম মেনে চললেই ত্বকের সতেজতা বজায় রাখা সম্ভব।

বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ নিয়ে প্রতিবেদনটি লিখেছেন (” নওশিন মারজিয়া, মেডিকেল শিক্ষার্থী)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here