রেড জোন-ঢাকার ২৩ টি জায়গায় করোনা রোগী বেশি

corona virus bangladesh 2020
corona virus bangladesh 2020 red zone

করোনভাইরাস (কোভিড -১৯) সংক্রমণের প্রকোপ বিবেচনা করে, সরকার রাজধানী সহ দেশের কয়েকটি অঞ্চলকে রেড জোন হিসাবে চিহ্নিত করে তালাবদ্ধ করবে। লাল অঞ্চল ঘোষণার ক্ষেত্রে উত্তরা, মোহাম্মদপুর, যাত্রাবাড়ী, ধানমন্ডি, কাকরাইল, মুগদা, মগবাজারের মতো অঞ্চল ঢাকার সর্বাধিক সংক্রমণের তালিকার শীর্ষে রয়েছে। এখন পর্যন্ত রাজধানীতে ২৩ টি অঞ্চল রয়েছে যেখানে ১০০ এর বেশি করোনার আক্রান্ত রোগী রয়েছে।

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রনালয়ের সূত্রে জানা গেছে, রবিবার থেকে ঢাকার কয়েকটি জায়গায় লকডাউন শুরু হবে। রেড জোনের প্রত্যেককে বাড়িতে থাকতে হবে, একেবারে প্রয়োজনীয় না হলে কেউ বাইরে যেতে পারবে না। ঐ এরিয়ার প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র পৌঁছানোর ব্যবস্থা করা হবে।

সর্বাধিক প্রভাবিত অঞ্চলগুলিকে লাল হিসাবে চিহ্নিত করা হবে, কম প্রভাবিত অঞ্চলগুলি হলুদ হিসাবে এবং অপেক্ষাকৃত কম আক্রান্ত অঞ্চলগুলিকে সবুজ অঞ্চল হিসাবে চিহ্নিত করা হবে। রেড জোনটি তালাবদ্ধ হয়ে যাবে এবং হলুদ অঞ্চলে আরও সংক্রমণ রোধে পদক্ষেপ নেওয়া হবে। গ্রীন জোনেও সতর্কতা থাকবে।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) সর্বশেষ পরিসংখ্যান অনুসারে, ঢাকায় ২০,৭০৭ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত করা হয়েছে। মিরপুর এলাকায় এখন পর্যন্ত সর্বাধিক সংখ্যক ৯৬৯ জন করোনায় আক্রান্ত রোগীর সন্ধান পাওয়া গেছে।

এছাড়া মহাখালিতে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ সংক্রামিত রোগীর সন্ধান পাওয়া গেল।

মহাখালীতে- ৪৫৭ জন

 উত্তরায় – ৪৩৩ জন

মুগদায় – ৪২৮ জন

মোহাম্মদপুরে-৩৯৪ জন

যাত্রাবাড়ী – ৩৮৭ জন

কাকরাইল – ৩০০ জন

ধানমন্ডি – ২৯৪ জন

মগবাজার – ২৫৫ জন

 তেজগাঁও – ২৫১ জন

রাজারবাগ – ২২১ জন

 খিলগাঁও – ২১৯ জন

লালবাগ – ২০৬ জন

 রামপুরা – ১৯৭ জন

 বাড্ডা – ১৯৫ জন

মালিবাগ – ১৬৪ জন

গুলশান – ১৬৩ জন

বাবুবাজার – ১৬২ জন

গেন্ডারিয়া – ১৪২ জন

ওয়ারী – ১২৪ জন

বাসাবো – ১২২ জন

বংশাল – ১০৯ জন

এবং আগারগাঁও – ১০৮ জন

স্বাস্থ্য অধিদফতরের সর্বশেষ ৬ জুন শনিবারের বুলেটিন অনুসারে, বাংলাদেশে এ পর্যন্ত করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ৬৩,০২৬ জন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here